Advertisement

‘কোনওদিন ভাবিনি দেশের প্রধানমন্ত্রী হব’, ঋষিকেশে অকপট মোদি

03:48 PM Oct 07, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একদিন দেশের প্রধানমন্ত্রী হবেন, এমন স্বপ্ন তিনি কোনওদিন দেখেননি। বৃহস্পতিবার ঋষিকেশের এইমসে ৩৫টি অক্সিজেন প্লান্টের (Oxygen plant) উদ্বোধনের সময় একথা জানালেন মোদি (PM Modi)।

Advertisement

এদিন প্রধানমন্ত্রী বলেন, ”দুই দশক আগে প্রশাসক হিসেবে আমার যাত্রা শুরু হয়। ২০০১ সালে আমি মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলাম। পরে মানুষের সমর্থনে প্রধানমন্ত্রী হই। কিন্তু আমি কোনওদিনই স্বপ্ন দেখিনি একদিন প্রধানমন্ত্রী হব। ঋষিকেশ থেকেই আমি জনসেবায় ২১ বছরে পদার্পণ করলাম।”

[আরও পড়ুন: ফের রক্তাক্ত কাশ্মীর! স্কুলে ঢুকে গুলিবর্ষণ জঙ্গিদের, মৃত্যু দুই শিক্ষকের]

এদিন মোদির ভাষণে উঠে আসে করোনা যুদ্ধে দেশের দক্ষতার কথা। তিনি বলেন, ”এত অল্প সময়ে কীভাবে এই পদক্ষেপ করা যায় তা ভারত দেখিয়ে দিয়েছে। একটি টেস্টিং ল্যাব থেকে ৩ হাজার টেস্টিং ল্যাব এবং মাস্ক ও কিট আমদানিকারী থেকে দ্রুত রপ্তানিকারী হয়ে উঠেছে দেশ। সেই সঙ্গে কোউইন প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে কীভাবে বিপুল পরিমাণে টিকাকরণ করা সম্ভব সেই পথও তুলে ধরা হয়েছে।”

এদিকে আগেই উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ধামি জানিয়েছিলেন, প্রধানমন্ত্রী উত্তরাখণ্ডের ঋষিকেশকেই যে সারা দেশে অক্সিজেন প্ল্যান্ট উদ্বোধনের জন্য বেছে নিয়েছেন, সেজন্য তাঁরা কৃতজ্ঞ। এদিন তিনিও উপস্থিত ছিলেন মঞ্চে। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্যকেও সেখানে উপস্থিত থাকতে দেখা যায়।

[আরও পড়ুন: একটানা ভারী বৃষ্টির জের, বাড়ি ভেঙে ২ শিশু-সহ সাতজনের মৃত্যু কর্ণাটকে]

উল্লেখ্য, দ্বিতীয়বার করোনা আঘাত হানার পর দেশজুড়ে অক্সিজেনের সংকট তৈরি হয়েছিল। দেশের সব বড় শহরেই কমবেশি সমস্যায় পড়তে হয়েছে করোনা (CoronaVirus) রোগীদের। বিশেষ করে দিল্লি এবং মহারাষ্ট্রে এই সমস্যা ছিল সবচেয়ে বেশি। উত্তরপ্রদেশ সরকার স্বীকার না করলেও সেরাজ্যেও যে অক্সিজেনের গভীর সংকট ছিল এবং বহু মানুষের প্রাণহানি হয়েছে, তা একাধিকবার প্রকাশ্যে এসেছে। অক্সিজেনের এই সংকট নিয়ে দ্বিতীয় ঢেউয়ের পর দেশজুড়ে সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল কেন্দ্রকে। তৃতীয় ঢেউয়ের ক্ষেত্রে যাতে সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয়, তা নিশ্চিত করতেই জুলাই মাসে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় দেশজুড়ে ১,৫০০টি অক্সিজেন প্লান্ট গড়ে তোলা হবে। সেই লক্ষ্যেই এগোচ্ছে দেশ।

Advertisement
Next