Advertisement

‘জাগো বাংলা’য় Mamata-র প্রশংসা, অনিলকন্যা অজন্তা বিশ্বাসকে সাময়িক সাসপেন্ড করছে CPM

04:07 PM Aug 17, 2021 |
Advertisement
Advertisement

বুদ্ধদেব সেনগুপ্ত: আঁচ ছিলই। এবার তা বাস্তবায়নের পথে।সিপিএমের (CPM) অঞ্চল কমিটির সদস্য হয়েও তৃণমূলের মুখপত্রে ‘জাগো বাংলা’য় লেখার জের। প্রয়াত সিপিএম নেতা অনিল বিশ্বাসের মেয়ে অজন্তা বিশ্বাসকে ৩ মাসের জন্য সাসপেনশনের (Suspension) প্রস্তাব দিল এরিয়া কমিটি। এই মর্মে জেলা কমিটির কাছে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। আগামী ২১ আগস্ট জেলা কমিটির বৈঠকে এ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে বলে সূত্রের খবর।

Advertisement

গত মাসেই তৃণমূলের (TMC) মুখপত্রের জন্য কলম ধরেছিলেন একসময়ের দাপুটে বাম নেতা অনিল বিশ্বাসের (Anil Biswas) কন্যা অধ্যাপক অজন্তা বিশ্বাস। লেখার প্রথম কিস্তি প্রকাশের দিন থেকেই চর্চায় রয়েছেন তিনি। তবে সকলের নজর ছিল ‘বঙ্গরাজনীতিতে নারীশক্তি’ শীর্ষক উত্তর সম্পাদকীয়তে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) সম্পর্কে কী লেখেন অনিলকন্যা? অবশেষে শনিবার শেষ কিস্তি লিখলেন তিনি। আর সেখানে তৃণমূলনেত্রীর লড়াইকে কুর্নিশ জানিয়েছেন অজন্তা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘ইতিহাসের সেরা বাঙালি মহিলা রাজনীতিবিদ’ও বলেছেন তিনি। তাঁর কলমে উঠে এসেছে নন্দীগ্রামে তৃণমূল সুপ্রিমোর লড়াইয়ের কথাও। যা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।

[আরও পড়ুন: দলত্যাগ মামলায় শুনানি পিছনোর আরজি, স্পিকারকে চিঠি Mukul Roy-এর]

শেষ কিস্তিটি প্রকাশের পর সিপিএমের এরিয়া কমিটির সদস্য অজন্তা বিশ্বাসকে শোকজ করে দল। কলকাতা জেলা সম্পাদক তথা সিপিএম রাজ্য সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য কল্লোল মজুমদার শোকজের কথা জানান। সিপিএমের সদস্য হয়ে ‘জাগো বাংলা’য় এ ধরনের লেখা দলবিরোধী কাজ বলে চিহ্নিত করে শোকজের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যদিও লেখিকা তথা অধ্যাপক অজন্তা বিশ্বাসের দাবি, দলমত নির্বিশেষে বাংলার রাজনীতিতে মহিলাদের লড়াইয়ের কথা তুলে ধরতে চেয়েছিলেন তিনি। তাঁর এই জবাব মনঃপুত হয়নি সিপিএম নেতৃত্বের। তাই তাঁকে তিনমাসের জন্য সাসপেন্ড করার সুপারিশ করেছে দলের এরিয়া কমিটি। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে জেলা কমিটির বৈঠকে।

[আরও পড়ুন: আরও সক্রিয় হোক ভারত সরকার, Taliban আগ্রাসন নিয়ে কেন্দ্রের উপর চাপ বাড়াচ্ছে TMC]

প্রসঙ্গত এর আগে সুশান্ত ঘোষের বিরুদ্ধেও এমনই সাময়িক শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়েছিল সিপিএম। একটি ডিজিটাল পত্রিকায় ‘আপত্তিকর’ কথা লেখার অভিযোগ তিনমাসের জন্য দল থেকে সাসপেন্ড করা হয়। সেবারও শীর্ষ নেতৃত্বের সবুজ সংকেতেই শাস্তি কার্যকর করা হয়েছিল। এমন সাময়িক শাস্তির মুখে পড়েছিলেন আরেক সিপিএম নেতা তাপস সিনহাও। এবার অজন্তার পালা। তিনমাসের সাজার খাঁড়া তাঁর মাথায় ঝুলছেই। ২১ তারিখ আলিমুদ্দিন জেলা কমিটির বৈঠকেই তা নিশ্চিত হবে। 

Advertisement
Next