Advertisement

‘বাংলা ভাষা এত মিষ্টি বলার লোভ সামলাতে পারলাম না’, বাঙালি আবেগ উসকে বার্তা মোদির

04:32 PM Oct 22, 2020 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মহাষষ্ঠীর সকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভাষণ নিয়ে বিভিন্ন মহলে চলছে জোর গুঞ্জন। বাঙালি আবেগকে উসকে দিয়ে ভোটবাক্সকে মজবুত করার চেষ্টা চলছে বলেই আলোচনাও শুরু হয়েছে। আর ঠিক তারই মাঝে বক্তৃতার শুরু এবং শেষে বাংলা ভাষাতেই কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী। EZCC’র পুজো উদ্বোধনের বক্তৃতায় তাঁর মুখ থেকে সামান্য অস্পষ্ট উচ্চারণে বাংলা শুনে অবাক অনেকেই।

Advertisement

বৃহস্পতিবার বক্তৃতার শুরুতেই বাংলায় ভাষায় দুর্গা এবং কালীপুজোর শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। বাংলায় সেকথা শুনে অবাক হয়ে যান প্রায় সকলেই। তবে কোভিডবিধি মেনে উৎসব উদযাপনের বার্তা দেন তিনি। বারবার মাস্ক ব্যবহার করার কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তবে এখানেই শেষ নয়। তাঁর বক্তৃতায় বাংলা ভাষার কথা উঠে এসেছে বারবার। বক্তৃতার শুরুর মতো শেষেও বাংলাতেই বক্তব্য রাখেন মোদি। তিনি বলেন, ”বাংলা ভাষা এত মিষ্টি যে এই ভাষা বলার লোভ সামলাতে পারলাম না।। জানি আমার উচ্চারণে কিছু খামতি ছিল। তার জন্য মার্জনা করবেন।”

[আরও পড়ুন: ‘গুরুংকে স্বাগত’, মমতার হয়ে একুশে লড়াইয়ের সংকল্পের পর টুইট বার্তা তৃণমূলের]

নারী শক্তির আরাধনায় মেতেছে বাঙালি। তাই এদিনের বক্তৃতায় নারী শক্তির কথাও বারবার বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, “উমা এলো ঘরে। বাংলার এই সনাতন পরম্পরা রয়েছে। প্রতিটি নারীকে মায়ের মতো শ্রদ্ধা জানাতে হবে। নারীদের প্রতি নির্যাতন রুখতে এদেশে এখন কড়া আইন প্রণয়ন করা হয়েছে। মহিলাদের সুরক্ষার জন্য এই সরকার যথেষ্ট তৎপর।” এদিন তাঁর বক্তৃতায় বাংলায় স্বনামধন্য ব্যক্তিত্বদের কথাও বারবার জায়গা পেয়েছে। রবীন্দ্রনাথ থেকে বঙ্কিমচন্দ্র। আবার ক্ষুদিরাম বসু, বিনয়-বাদল-দীনেশ থেকে মাতঙ্গিনী হাজরার কথা বলেছেন তিনি। উঠে এসেছে সত্যজিৎ রায়, উত্তম কুমার, সুচিত্রা সেনের নামও। রাজনৈতিক মহলের মতে, বাঙালি আবেগকে উসকে দিতেই বারবার বাংলা ভাষা, বাংলার মনীষী এবং নারীশক্তি নিয়ে বক্তব্য রেখেছেন তিনি। তবে তা নিয়ে গেরুয়া শিবির কোনও মন্তব্য করতে নারাজ।

[আরও পড়ুন: আরজি করের সদ্যোজাত নিখোঁজ মামলা, ডিআইজি সিআইডির নেতৃত্বে তদন্তের নির্দেশ হাই কোর্টের]

Advertisement
Next