Advertisement

নিয়োগে স্বচ্ছতা আনতে প্রকাশ করা হবে TET-এর উত্তরপত্র, পুজোর আগেই ফলপ্রকাশের সম্ভাবনা

04:03 PM Sep 16, 2021 |
Advertisement
Advertisement

দীপঙ্কর মণ্ডল: পুজোর আগেই প্রাথমিক টেট-এর (Primary TET) ফলপ্রকাশ হতে পারে। পরীক্ষার্থীদের উত্তরপত্র আপলোড করা হবে পর্ষদের ওয়েবসাইটে। এ মাসের শেষে ফল জানতে পারবেন পরীক্ষার্থীরা। এমনই ইঙ্গিত মিলেছে পর্ষদ সূত্রে। তারপর চলবে নিয়োগ প্রক্রিয়া। আগেই নবান্ন থেকে মুখ্যমন্ত্রী শিক্ষক (Teachers)নিয়োগের ঘোষণা করেছেন। তিনি বলেছিলেন, পুজোর আগে প্রাথমিক-উচ্চ প্রাথমিক মিলিয়ে প্রায় সাড়ে ২৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগ হবে। শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু ইতিমধ্যে ঘোষণা করেছেন, এবার থেকে প্রতি বছর রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা টেট (TET) নেওয়া হবে।

Advertisement

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে লিখিত পরীক্ষা টিচার এলিজিবিলিটি টেস্ট বা টেট নেওয়া হয় চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে। এখনও ফল প্রকাশ হয়নি। পুজোর আগে ফল প্রকাশ করতে পারে পর্ষদ। এই পরীক্ষার মাধ্যমে প্রায় ১৬ হাজার ৫০০ জন শিক্ষক নিয়োগ হবে। চলতি বছরে যে টেট হয়েছে তা হওয়ার কথা ছিল ২০১৭ সালে। আবেদন করে রেখেছিলেন আড়াই লক্ষেরও বেশি প্রার্থী। ৩১ জানুয়ারি খাতাকলমে পরীক্ষা হয়। এখনও ফল প্রকাশিত হয়নি। সেই ফলাফলই বেরতে পারে এ মাসের শেষের দিকে।

[আরও পড়ুন: ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্প বন্ধের দাবিতে কলকাতা হাই কোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে ডিলাররা]

২০০৯ সালে প্রাথমিকের নিয়োগ ঘিরে জটিলতা দীর্ঘদিনের। ওই বছর বিজ্ঞপ্তি জারির পর ২০১০ সালে বিভিন্ন জেলায় প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের মাধ্যমে নিয়োগ পরীক্ষা হয়েছিল। ২০১১ সালে রাজ্যে পরিবর্তনের পর  সেই নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করে সরকার। মালদহ, উত্তর ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা এবং হাওড়া – এই চার জেলায় প্রাথমিকে নিয়োগ প্রক্রিয়ায় স্বজনপোষণের অভিযোগ আনে নতুন সরকার। মামলা গড়ায় কলকাতা হাই কোর্ট (Calcutta HC) পর্যন্ত। ২০০৯-এর পরীক্ষার মেধাতালিকা মেনে প্রাথমিকে নিয়োগের নির্দেশ দেয় আদালত। শূন্যপদ না থাকলে নতুন করে শূন্যপদ তৈরিরও নির্দেশ দেয় আদালত।

[আরও পড়ুন: ধর্ষণ মামলায় গাফিলতির অভিযোগ, পুলিশের বিরুদ্ধেই তদন্তের নির্দেশ আদালতের]

হাওড়ায় নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন। দক্ষিণ চব্বিশ পরগনায় নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে মামলা চলছে আদালতে। উত্তর ২৪ পরগনায় ২ হাজার ৬০০ পদ ও মালদাতে ১ হাজার ৩৩১ পদে নিয়োগের নির্দেশ দেয় আদালত। স্কুলশিক্ষা দপ্তরের একটি সূত্র জানিয়েছে, আদালতের নির্দেশমতো ওই দুই জেলায় প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে সম্মতি দিয়েছে মন্ত্রিসভা। 

Advertisement
Next