Advertisement

‘সমর্থকদের উৎসাহই শক্তি’, চূড়ান্ত লড়াইয়ের আগে মহামেডানকে এগিয়ে রাখলেন বেইতিয়া

09:13 PM May 13, 2022 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মহামেডান স্পোর্টিংয়ের (Mohammedan Sporting Club ) স্ট্রাইকার হেনরি কিসেকা ফেসবুকে ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘এ সিম্পল স্মাইল ইজ আ থেরাপি।’ নির্ভেজাল হাসিই যে আসল চিকিৎসা। 

Advertisement

সোশ্যাল মিডিয়ায় গ্রুপ ছবি পোস্ট করেছে সাদা-কালো শিবির। রুশ কোচ আন্দ্রেই চেরনিশোভ হাসছেন, প্রাক্তন ফুটবলার দীপেন্দু বিশ্বাসের মুখেও অনাবিল হাসি। এই হাসি নিমেষে কমাতে পারে যাবতীয় টেনশন। জীবনের অন্যতম কঠিন এক ম্যাচ খেলার আগে তাই হাসছেন হেনরি কিসেকা। হাসছে গোটা মহামেডান স্পোর্টিং শিবির।

শনিবার আই লিগের ‘ফাইনাল’। গোকুলামের (Gokulam Kerala) বিরুদ্ধে সাদা-কালো শিবিরের ম্যাচটা কার্যত ফাইনালই হয়ে গিয়েছে। ম্যাচ যার, আই লিগ ট্রফিও তার। মহামেডান স্পোর্টিং জিতলে প্রথমবার খেতাব জিতবে। ট্রফি বুভুক্ষু এক ক্লাব ভারতসেরা হবে। 

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: ‘মোহনবাগানের সঙ্গে সাক্ষাতের স্মৃতি ভাল-মন্দে মেশানো’, বলছেন বসুন্ধরা কিংসের কোচ অস্কার ব্রুজো]

২০১৯-২০ মরশুমের আই লিগ এসেছিল কলকাতারই আরেকটি ক্লাবে। মোহনবাগানে। কলকাতায় আই লিগ এসেছিল শেষবার। সেই দলের মস্তিষ্ক ছিলেন স্প্যানিশ কোচ কিবু ভিকুনা (Kibu Vicuna)। মাঠে নেমে ফুল ফোটাতেন জোসেবা বেইতিয়ারা (Joseba Beitia)। কল্যাণীতে আইজলকে ০-১ গোলে হারিয়ে আই লিগ ঘরে তোলে সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। বেইতিয়ার পাস থেকে সেদিন আইজলের জালে বল জড়িয়েছিলেন বাবা দিওয়ারা।

কল্যাণীর সেই ম্যাচের কথা স্মৃতিতে এখনও টাটকা বেইতিয়ার। এখন জার্সির রং বদলেছে তাঁর। শুক্রবার আই লিগে বেইতিয়ার রাউন্ডগ্লাস পাঞ্জাব ও নেরোকার ম্যাচ ৩-৩ গোলে শেষ হয়। আগামিকাল মহামেডান ও গোকুলাম যুদ্ধ জেতার জন্য যখন নিজেদের নিংড়ে দেবে, তখন সবার অজান্তেই কলকাতা ছাড়বেন মাঝমাঠের শিল্পী ফুটবলার।

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটালকে বেইতিয়া বলছিলেন, ”আগামিকাল রাতের বিমানে আমি দেশে ফিরছি। মহামেডান স্পোর্টিং-গোকুলাম ম্যাচটা মনে হয় না আমি দেখতে পারব। তবে দুটো দলকেই শুভেচ্ছা জানালাম। খুবই শক্তিশালী দল মহামেডান স্পোর্টিং ও গোকুলাম। নিজেদের উজাড় করে দাও মাঠে।” মহামেডান স্পোর্টিং ও গোকুলামের জন্য বেইতিয়ার ছোট্ট পরামর্শ। এবারের আই লিগে দুটো দলের বিরুদ্ধেই খেলেছেন বেইতিয়া। গোকুলামের বিরুদ্ধে দুটো সাক্ষাতেই হারতে হয়েছিল বেইতিয়ার রাউন্ডগ্লাস পাঞ্জাবকে। মহামেডানের বিরুদ্ধে অবশ্য একটি ম্যাচ জিতেছে পাঞ্জাব, আরেকটি ম্যাচ ড্র করেছে।

বছর দুয়েক আগের আই লিগের চিত্রনাট্য এবারের মতো কঠিন ছিল না। মোহনবাগান দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইস্টবেঙ্গলের থেকে ১৬ পয়েন্টে এগিয়ে থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়। আই লিগের রং যে সবুজ-মেরুনই হবে তা অনেক আগে থেকেই জানা ছিল। কিন্তু এবার আই লিগ জয়ের লড়াই রুদ্ধশ্বাস। বেইতিয়া বলছেন, ”দুটো দলই খুব কঠিন। আলাদা করে বলা যাবে না কোন দল এগিয়ে রয়েছে। তবে আমার ব্যক্তিগত ভাবে মনে হয় মহামেডান স্পোর্টিং এগিয়ে রয়েছে গোকুলামের থেকে। কারণ মহামেডান ঘরের মাঠে খেলার সুবিধা নেবে। প্রচুর সমর্থক মাঠে যাবেন, তাঁদের সামনে খেলবে মহামেডান। নিজেদের সমর্থকদের সামনে খেললে বাড়তি উৎসাহ পাওয়া যায়।” 

বেইতিয়া সেবার তিনটি গোল করেছিলেন। সেই স্প্যানিশ প্লে মেকার বলছিলেন, ”আমরা তো আইজল ম্যাচের আগেরদিন গান শুনে, পরিবারের সঙ্গে কথাবার্তা বলে হালকা থাকার চেষ্টা করেছিলাম।” সেই অভিজ্ঞতা থেকেই বেইতিয়া দুটো দলকে পারমর্শ দিয়ে বলছেন, ”হালকা মেজাজে থাকতে হবে।”

বেইতিয়ার পরামর্শ হেনরিরা শুনেছেন কিনা জানা নেই। তাঁরা যে চাপ অনুভব করছেন না, তা প্রমাণিত হেনরিদের পোস্টেই। নির্ভেজাল হাসিই যে আসল চিকিৎসা।   

 

[আরও পড়ুন: IPL 2022: ‘পাকিস্তানে থাকলে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে ফেলত উমরান’, ভারতকে ‘কাশ্মীর খোঁচা’ কামরানের]

 

Advertisement
Next