এবার শ্রীলঙ্কায় তৈরি হল বিজেপি! তামিল ব্যবসায়ীর হাত ধরে দ্বীপরাষ্ট্রে গঠিত সংগঠন

11:49 AM Mar 12, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার বিদেশেও অস্তিত্ব জানান দিল ‘ভারতীয় জনতা পার্টি’ (BJP)! শ্রীলঙ্কায় তৈরি হল ‘ভারতীয় জনতা কাটচি’ বা ‘শ্রীলঙ্কা ভারতীয় জনতা পার্টি’ (SLBJP)। গত শনিবার একদা তামিল বিদ্রোহী অধ্যুষিত জাফনায় এই দল গঠনের কথা ঘোষণা করেন কলম্বোর ভারতীয় বংশোদ্ভূত তামিল ব্যবসায়ী বেলুস্বামী মুথুস্বামী।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ‘অন্ধকারে আলো খুঁজে নেয় আমেরিকা’, করোনা মহামারীর বর্ষপূর্তিতে আশার বার্তা বাইডেনের]

গত ফেব্রুয়ারি মাসেই নেপাল ও শ্রীলঙ্কায় বিজেপি ছড়িয়ে পড়বে বলে দাবি করেছিলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর সেই মন্তব্য নিয়ে দেখা দিয়েছিল তীব্র বিতর্ক। কূটনৈতিক মঞ্চে প্রতিবাদ জানিয়েছিল কাঠমান্ডু ও কলম্বো। পরিস্থিতি সামলাতে আসরে নামতে হয়েছিল সঙ্ঘ ও বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে। বিপ্লব দেবের ওই মন্তব্যকে অনেকেই ‘রসিকতা’ হিসেবে দেখেছিলেন। এহেন সময়ে ভারতের প্রতিবেশী দ্বীপরাষ্ট্রটিতে এসএলবিজেপি গঠন রীতিমতো চমক তৈরি করেছে। তবে ভারতের BJP’র সঙ্গে এই দলের কোনও যোগ নেই। জাফনার প্রেস ক্লাবে এসএলবিজেপি গঠনের কথা ঘোষণা করে হোটেল ব্যবসায়ী মুথুস্বামী জানান, ভারতের শাসকদল বিজেপির সঙ্গে এসএলবিজেপির কোনও যোগ নেই। মুথুস্বামীর কথায়, “ভারতের বিজেপির সঙ্গে আমাদের কোনও যোগ নেই। কিন্তু আমি মাননীয় নরেন্দ্র মোদিকে পছন্দ করি। উনি উন্নয়নের লক্ষ্যে বহু প্রকল্প হাতে নিয়েছেন এবং তার ফল হাতেনাতে পাচ্ছেন।”

উল্লেখ্য, গত মাসে ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলায় দলের একটি সাংগঠনিক কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন বিপ্লব দেব। সেখানে তিনি বলেছিলেন যে শুধু নিজেদের দেশে নয়, পড়শি রাষ্ট্রগুলিতে ছড়িয়ে পড়ার পরিকল্পনা রয়েছে দলের। নেপাল ও শ্রীলঙ্কায় সরকার গঠন করার নকশা তৈরি করেছে বিজেপি। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির চাণক্যর সাংগঠনিক ক্ষমতার প্রশংসা করে ত্রিপুরার (Tripura) মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, “স্টেট গেস্ট হাউসে ২০১৮ সালে আমরা আলোচনা করছিলাম। সেই সময় বিজেপির উত্তর-পূর্ব জোনের পর্যবেক্ষক অজয় জামওয়াল বলেছিলেন, অমিত শাহ বলেছেন দেশের সব রাজ্যে বিজেপি প্রতিষ্ঠা পেয়ে গিয়েছে। এবার নেপাল ও শ্রীলঙ্কায় দলের বিস্তার ঘটাতে হবে। সেখানে নির্বাচন জিতে সরকার গড়তে হবে।” বলে রাখা ভাল, বিপ্লব দেব যে সময়ের কথা বলছেন, তখন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি ছিলেন অমিত শাহ।

[আরও পড়ুন: ফের রক্তস্নাত মায়ানমার! সেনার গুলিতে নিহত ৭ গণতন্ত্রকামী, আহত ৮]

Advertisement
Next