যুদ্ধের আবহে কূট চাল রাশিয়ার, ইউক্রেনীয়দের নিজেদের নাগরিক দাবি করে পাসপোর্ট দিচ্ছে পুতিনের দেশ!

07:09 PM Jun 12, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১০০ দিন পেরিয়ে গিয়েছে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের (Russia-Ukraine War)। ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া অবিরাম যুদ্ধে পিছু হটতে রাজি নয় কোনও পক্ষই। এহেন পরিস্থিতিতে প্রকাশ্যে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য। কূট চাল দিল রাশিয়া। ইউক্রনের যেসব অংশ রাশিয়ার দখলে রয়েছে, সেই অঞ্চলের নাগরিকদের রুশ পাসপোর্ট (Russian Passport) বিলি করা হল। ইউক্রেন দখলের লক্ষ্যে এগোতে থাকা রাশিয়ার এই পদক্ষেপকে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই দাবি করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

দক্ষিণ ইউক্রেনের খারসন অঞ্চলটি যুদ্ধের প্রথম থেকেই রাশিয়ার দখলে ছিল। সেখানেই তেইশ জন ইউক্রেনীয়কে (Ukrainian Citizen) পাসপোর্ট দিল ভ্লাদিমির পুতিনের প্রশাসন। জানা গিয়েছে, প্রত্যেকটি পাসপোর্টেই রুশ প্রেসিডেন্টের সই রয়েছে। খারসনের প্রধান আধিকারিক ভ্লাদিমির সালদো জানিয়েছেন, “খারসনের বাসিন্দারা দ্রুত পাসপোর্ট চেয়েছিলেন। এছাড়াও যত তাড়াতাড়ি সম্ভব রুশ নাগরিকত্ব নিতেও আগ্রহী স্থানীয় বাসিন্দারা।” রাশিয়ার জাতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে সালদো বলেছেন, “একটি নতুন যুগের সূচনা হচ্ছে। যে কোনও নাগরিকের কাছেই পাসপোর্ট খুবই গুরুত্বপূর্ণ।”

[আরও পড়ুন:‘বাংলা ভাষা উচ্চারিত হলে…’ এবার রাষ্ট্রসংঘে বাংলা ভাষাও, গৃহীত প্রস্তাব]

পূর্বতন সোভিয়েত ইউনিয়ন থেকে আজকের দিনেই স্বাধীন হয়েছিল রাশিয়া। সেই বিশেষ দিনের কথা মাথায় রেখে রবিবারই পাসপোর্ট বিতরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় খারসনের (Kherson) আধিকারিকদের তরফে। তবে রাশিয়ার এই পদক্ষেপের বিরোধিতা করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। ইউক্রেনের সার্বভৌমত্বে আঘাত হেনেছে রাশিয়া, এমনটাই দাবি করেছেন তিনি। সেই সঙ্গে পুতিনের সই করা পাসপোর্টকে ‘ভুয়ো’ বলেও অভিহিত করেছেন জেলেনস্কি।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

নিজেদের দখলে থাকা ইউক্রেনীয় অঞ্চলে গণভোট করাতে চায় রাশিয়া, এমন কথাও শোনা গিয়েছিল। ২০১৪ সালে এইভাবেই রাশিয়ার অন্তর্ভুক্ত হয়েছিল ক্রিমিয়া। বিশেষজ্ঞদের মতে, ইউক্রেনের নাগরিকদের পাসপোর্ট দিয়ে আসলে নিজেদের আধিপত্য জাহির করতে চাইছে রাশিয়া। নিজেদের দেশের অংশ হিসাবেই ইউক্রেনের নাগরিকদের প্রতিষ্ঠিত করতে চাইছে পুতিন প্রশাসন। 

[আরও পড়ুন: দেশে ফিরবেন ‘মৃত্যুপথযাত্রী’ পারভেজ মুশারফ! পাক প্রতিরক্ষামন্ত্রীর মন্তব্য ঘিরে জল্পনা

 

Advertisement
Next