Advertisement

শবর কিশোরী পরিচারিকার উপর অকথ্য ‘অত্যাচার’, কাঠগড়ায় ঝাড়গ্রামের বিজেপি নেত্রী

05:12 PM Jan 25, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সুনীপা চক্রবর্তী, ঝাড়গ্রাম: শবর কিশোরী পরিচারিকার উপর অকথ্য অত্যাচারের অভিযোগ উঠল বিজেপির মহিলা মোর্চার ঝাড়গ্রাম (Jhargram) শহর সভাপতির বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় নাম জড়াল আরেক বিজেপি কর্মীরও। তিনি আবার পেশায় শিক্ষক। এদিকে, ওই কিশোরীর বক্তব্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। কিশোরীর বয়ানকে হাতিয়ার করেই তীব্র প্রতিবাদে সরব তৃণমূল। আর তা নিয়ে চরম অস্বস্তিতে বিজেপি। যদিও এই ঘটনাকে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র বলেই দাবি করছে পদ্ম শিবির। বিজেপি নেত্রী-সহ দু’জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। আদালতে আত্মসমর্পণ করে আগাম জামিন নিয়েছে তাঁরা।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

জামবনি ব্লকের দহিচাকুড়িয়া এলাকার কষাফুলিয়া গ্রামের বাসিন্দা ওই কিশোরী। ওই গ্রামেরই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক অরূপ পাল তাকে স্কুলে ভরতি করার প্রতিশ্রুতি দেয়। কিশোরীকে ঝাড়গ্রামে নিয়ে যায় শিক্ষক। ঝাড়গ্রাম শহরের নতুনডিহি এলাকার বিজেপির মহিলা মোর্চার শহর সভাপতি সোমা পৈচ্ছার বাড়িতে থাকতে শুরু করে কিশোরী। অভিযোগ, কোনও স্কুলে ভরতি করানো হয়নি তাকে। পরিবর্তে সোমা পৈচ্ছার বাড়িতে কাজ করতে শুরু করে। দিনকয়েক আগে কিশোরী কাঁদতে কাঁদতে পাড়ার একটি দোকানে চলে যায়। অভিযোগ করে তাকে খেতে দেওয়া হয় না। বেধড়ক মারধর করে ওই বিজেপি নেত্রী। তবে এই প্রথমবার নয়, এর আগেও একাধিকবার অত্যাচারের কথা স্থানীয়দের জানায় কিশোরী। বারবার একই অভিযোগ শুনে স্থানীয়রা তৎপর হয়। তাকে নিয়ে থানায় যায়। অভিযোগ দায়ের করা হয়। এদিকে, গীতার বক্তব্যের ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

[আরও পড়ুন: মমতার জনসভায় গরহাজির উত্তরপাড়ার ‘বেসুরো’ বিধায়ক! মঙ্গলবার স্পষ্ট করবেন অবস্থান]

এই ঘটনায় লেগেছে রাজনীতির রং। তীব্র সমালোচনায় সরব ঘাসফুল (TMC) শিবির। যদিও বিজেপি নেত্রী সোমা পৈচ্ছা বলেন, “এটা একটা ষড়যন্ত্র। কিশোরীর সঙ্গে আমার সুসম্পর্ক রয়েছে। ১৩ বছর বয়সে আমার এখানে এসেছিল। দ্বিতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করে ছেড়ে দিয়েছিল। আমি এখানে আসার পর পড়াশোনা শিখিয়েছি। জোর করে বাড়ি থেকে টেনে নিয়ে গিয়ে এই সব কথা বলানো হয়েছে। তা ভাইরালও করা হয়েছে। আদালতেই সব প্রমাণ হয়ে যাবে। আমি তাকে কখনো কাজের মেয়ে ভাবি না। নিজের পরিবারের একজন মনে করেছি। ওর জন্মদিনও পালন করেছি। ভুল তথ্য দেওয়া হচ্ছে।” ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপির (BJP) সভাপতি সুখময় শতপথি বলেন, “এটা পারিবারিক বিষয়। আদালতেও ঘটনার জল গড়িয়েছে। কিন্তু এটাকে জোর করে রাজনীতির রং লাগাচ্ছে তৃণমূল। মেয়েটিকে দিয়ে জোর করে কথা বলানো হয়েছে।” অন্যদিকে, এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূল কমিটির সদস্য তথা প্রাক্তন কাউন্সিলর।

[আরও পড়ুন: রাস্তায় দাঁড়িয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলার নলি কাটার চেষ্টা যুবকের! চাঞ্চল্য কোচবিহারে]

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next