Advertisement

‘বিশ্বভারতীর পড়ুয়ারা নেশা করে জানলে কবিগুরু আত্মহত্যা করতেন’, বেফাঁস অনুব্রত

06:07 PM Oct 05, 2021 |

ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, বোলপুর: ফের বেফাঁস বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল (Anubrata Mandal)। এবার এক অনুষ্ঠান থেকে তৃণমূল নেতা দাবি করলেন, বিশ্বভারতীর পড়ুয়ারা যে পরিমাণে নেশা করেন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (Rabindranath Tagore) তা জানলে আত্মহত্যা করতেন! অনুব্রতর এই মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছে বিজেপি।

Advertisement

মঙ্গলবার বীরভুমের বোলপুরের গীতাঞ্জলি প্রেক্ষাগৃহে ওয়েস্ট বেঙ্গল কলেজ ও ইউনিভার্সিটি প্রফেসর অ্যাসোসিয়েশনের তরফে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে উপস্থিত ছিলেন বোলপুরের বিধায়ক তথা রাজ্যের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পদপ্তরের মন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিংহ, বোলপুরের বিশ্ববাংলা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, অধ্যাপক-সহ অন্যান্যরা। আমন্ত্রিত ছিলেন অনুব্রত মণ্ডলও। সেখানেই বেফাঁস মন্তব্য করে বসেন তৃণমূল নেতা।

[আরও পড়ুন: Durga Puja 2021: কানাডায় পাড়ি জমাচ্ছে কাটোয়ার কাঠের সিংহবাহিনী, পুজোর অপেক্ষায় প্রবাসীরা]

ঠিক কী বলেছেন অনুব্রত মণ্ডল? তিনি বলেন, “আজ সকালে আমার কাছে দু’টি অভিযোগ এসেছে। বিশ্বভারতীতে নাকি ছেলেমেয়েরা ব্যাপক নেশা করছে। ছেলেদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মেয়েরাও নাকি এসবে শামিল হয়েছে। সত্যি কথা বলতে, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর যদি আজ বেঁচে থাকতেন তাহলে উনি সুইসাইড করতেন।” দুঃখপ্রকাশ করে অনুব্রত জানান, তাঁর ইচ্ছে ছিল মেয়েকে বিশ্বভারতীতে ভরতি করার কিন্তু তা তিনি পারেননি। বীরভূমের তৃণমূল সভাপতির দাবি, সেই দুঃখ ঘোচাতেই বোলপুর বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে তৃণমূল নেতার এদিনের মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছেন বিজেপি নেতারা। জয়প্রকাশ মজুমদার (Jay Prakash Majumder) বলেন, “দীর্ঘদিন ধরে বিশ্বভারতীতে উনি অশান্তি তৈরি করছেন। বাম ছাত্ররা তালা ভাঙছেন, অনুব্রতবাবু তাতে সমর্থন করছেন। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরই জানেন, তিনি হলে কী করতেন। তবে বলব, সমাজ অবক্ষয়ের মুখে। চাকরি নেই বলেই যুবক-যুবতীরা বিপথে যাচ্ছেন। সরকার দায়িত্ববান হলেই পরিস্থিতি আয়ত্তে আসবে।”

[আরও পড়ুন: ধর্ষণের পর খুন? বালির স্তূপ থেকে তরুণীর বিবস্ত্র দেহ উদ্ধার ঘিরে শোরগোল উলুবেড়িয়ায়]

Advertisement
Next