Advertisement

COVID-19: করোনায় মৃত্যু কমল রাজ্যে, গত ২৪ ঘণ্টায় দুই জেলায় সংক্রমণ শতাধিক

07:48 PM Sep 23, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বৃষ্টি বিপর্যয়ের মাঝে ফের রাজ্যে সামান্য মাথাচাড়া দিল করোনা ভাইরাস (Coronavirus)। দৈনিক সংক্রমণ বাড়ল বেশ খানিকটা, যদিও মৃত্যু নিম্নমুখী। স্বাস্থ্যদপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে কোভিড আক্রান্ত ৭৪৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের। বুধবার এই সংখ্যা ছিল ১৩। একদিনে করোনার কবল থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন রাজ্যের ৭৫৪ জন। সুস্থতার হার ৯৮.৩১ শতাংশ। দৈনিক সংক্রমণের শীর্ষে কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগনা।

Advertisement

স্বাস্থ্যদপ্তরের সাম্প্রতিকতম পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় কলকাতায় কোভিড (COVID-19) আক্রান্তের সংখ্যা ১৩২। আর উত্তর ২৪ পরগনায় একদিনে সংক্রমিত হয়েছেন ১২৫ জন। আপাতত রাজ্যের কোভিড গ্রাফের শীর্ষে এই দুই জেলাই। মৃত্যুর নিরিখেও একই সারিতে কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনা। দুই জেলাতেই একদিনে করোনার বলি ২ জন করে। করোনা যুদ্ধে সবচেয়ে এগিয়ে পুরুলিয়া, মুর্শিদাবাদ, আলিপুরদুয়ার। এই তিন জেলাতেই দৈনিক সংক্রমণ দশের কম। এ নিয়ে রাজ্যে মোট করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা ১৬ লক্ষ ৬৪ হাজার ১৩৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৫ লক্ষ ৩৭ হাজার ৭৩২ জন। আর মহামারীর ছোবলে প্রাণ হারিয়েছেন ১৮ হাজার ৭০৩ জন।

[আরও পড়ুন: কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ মইনুল হকের, জঙ্গিপুরে অভিষেকের উপস্থিতিতে দলবদল]

রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনার নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৪১ হাজার ৩০৭টি, যার মধ্যে মাত্র ১.৮১ শতাংশ রিপোর্ট পজিটিভ। এখনও পর্যন্ত রাজ্যের ৫ লক্ষ ৯৫ হাজার ৫৯৬ জন করোনা টিকা (Corona vaccine) পেয়েছেন। কলকাতা শহর-সহ বিভিন্ন জেলায় টিকাকরণে আরও জোর দেওয়া হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: ‘সিপিএমের সঙ্গে আঁতাঁত করলে হেরে যাবেন’, সামশেরগঞ্জের প্রচারে অভিষেকের নিশানায় কংগ্রেস]

সামনে উৎসবের মরশুম, তার উপর তিন কেন্দ্রে ভোট। ফলে জনসমাগম বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাতে করোনা সংক্রমণ যাতে ছড়িয়ে না পড়ে, তার জন্য ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রাজ্যে জারি কোভিড বিধিনিষেধ। এমনকী সুস্থ থাকতে করোনা টিকাকরণে জোর, রাজনৈতিক সভা-মিছিল বাতিলও করা হয়েছে। ছোট ছোট স্তরে সীমিত সংখ্যক কর্মী, সমর্থক নিয়ে চলছে ভোটের প্রচার। উৎসবের মরশুমেও যাতে সকলে নিয়ম মেনে চলেন, তার আলাদা গাইডলাইন বেঁধে দেওয়ার জন্য বৃহস্পতিবারই হাই কোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে। ফলে প্রশাসন যথেষ্ট সতর্ক।

Advertisement
Next