Advertisement

সেনাবাহিনীতে দূর হল লিঙ্গবৈষম্য, মহিলাদের স্থায়ী কমিশন দিতে জারি নির্দেশিকা

09:46 PM Jul 23, 2020 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত ফেব্রুয়ারি মাসেই ভারতীয় সেনাবাহিনীতে লিঙ্গবৈষম্য দূর করে যুগান্তকারী রায় দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। শীর্ষ আদলত সাফ জানিয়েছিল, মহিলাদের স্থায়ী কমিশন দিতে হবে। সেই নির্দেশ মেনেই বৃহস্পতিবার, একটি সার্কুলার জারি করেছে কেন্দ্র সরকার।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ৫ আগস্ট রাম মন্দিরের ভূমিপুজো হলে সর্বনাশ হবে! সতর্ক করলেন শংকরাচার্য]

সেনার মুখপাত্র জানিয়েছেন, নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, Short Service Commissioned-এর (SSC) অন্তর্গত স্থলসেনায় কর্মরত মহিলা অফিসারদের স্থায়ী কমিশন দিতে হবে। এর আগে আর্মি এডুকেশনাল কোর, এডভোকেট জেনারেল ও সেনা আদালতের বিচারপতি পদে স্থায়ী পদে নিয়োগ দেওয়া হত। এবার সেনার ১০টি শাখায় মহিলা অফিসারদের স্থায়ী কমিশন দেওয়া হবে। গত ফেব্রুয়ারির রায়ের পর, চলতি মাসের ৭ তারিখ কেন্দ্রকে শীর্ষ আদালত এক মাসের মধ্যে মহিলা অফিসারদের স্থায়ী কমিশন দেওয়ার নির্দেশ দেয়।

মহিলাদের ‘পারমানেন্ট কমিশন’ দেওয়ার নির্দেশ দিয়ে ২০১০ সালে রায় দিয়েছিল দিল্লি হাই কোর্ট। তারপরই সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করে কেন্দ্র সরকার। কেন্দ্রের যুক্তি ছিল, ‘মহিলাদের শারীরিক গঠনে’ সীমাবদ্ধতা ও লড়াইয়ে অত্যন্ত কঠিন পরিবেশের দরুণ সেনায় স্থায়ী পদে নিয়োগ দেওয়া সম্ভব নয়। এছাড়াও কেন্দ্র আরও দাবি করেছিল, মহিলা অফিসারদের কমান্ড পোস্ট বা সরাসরি যুদ্ধক্ষেত্রে নিয়োগ করলে তাঁদের নিরাপত্তার বিশেষ ব্যবস্থা করতে হবে। পাশাপাশি, সীমান্তে মোতায়েন পুরুষ জওয়ানরা মহিলা অফিসারদের আদেশ মানতে মানসিকভাবে প্রস্তুত নয়।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালে ভারতীয় সেনার তিন বাহিনীতেই মহিলাদের ‘পারমানেন্ট কমিশন’ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল দিল্লি হাই কোর্ট। তারপরই এই রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। গত বছর স্থলসেনার সিগন্যালস, ইঞ্জিনিয়ারস, আর্মি এভিয়েশন, আর্মি এয়ার ডিফেন্স, আর্মি সার্ভিস কোর-সহ ১০টি শাখায় মহিলাদের স্থায়ী নিয়োগ দেওয়া হয়।

[আরও পড়ুন: মাস্ক না পরলেই ১ লক্ষ টাকা জরিমানা, সংক্রমণ রুখতে কড়া পদক্ষেপ ঝাড়খণ্ডের]

The post সেনাবাহিনীতে দূর হল লিঙ্গবৈষম্য, মহিলাদের স্থায়ী কমিশন দিতে জারি নির্দেশিকা appeared first on Sangbad Pratidin.

Advertisement
Next