Advertisement

২৬ ডিসেম্বর পালিত হবে ‘বীর বাল দিবস’, গুরু গোবিন্দ সিংয়ের জন্মজয়ন্তীতে ঘোষণা মোদির

07:02 PM Jan 09, 2022 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দশম শিখ গুরু গোবিন্দ সিংয়ের (Guru Gobind Singh) জন্মদিনে বড় ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Modi)। রবিবার সকালে টুইট করে একথা জানালেন তিনি। এবার থেকে ২৬ ডিসেম্বর দিনটি পালিত হবে ‘বীর বাল দিবস’ (Veer Baal Diwas) হিসেবে।

Advertisement

এদিন টুইটারে প্রধানমন্ত্রী লেখেন, ‘‘আজ শ্রী গুরু গোবিন্দ সিংয়ের জন্মজয়ন্তীর পুণ্যতিথিতে আমি এই ঘোষণা করতে পেরে সম্মানিত যে, এবার থেকে ২৬ ডিসেম্বর দিনটি ‘বীর বাল দিবস’ হিসেবে পালিত হবে। সাহিবজাদের সাহস ও ন্যায়ের নিষ্ঠার প্রতি এই শ্রদ্ধার্ঘ্য।’’

[আরও পড়ুন: আয়কর হানায় জলের ট্যাঙ্ক থেকে বেরল কোটি টাকা! নোট শুকোনোর ভিডিও ভাইরাল]

Advertising
Advertising

শিখদের দশম গুরু গোবিন্দ সিং যোদ্ধা খালসা বংশের প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। মাত্র ৯ বছর বয়সে বাবা গুরু তেগ বাহাদুরের স্থলাভিষিক্ত হন তিনি। একাধারে তিনি ছিলেন নেতা, যোদ্ধা, কবি ও দার্শনিক। বলা যায়, আদর্শ পৌরুষের দৃপ্ত প্রতীক হিসেবে তাঁকে দেখা হয়। পঞ্চ ‘ক’ তথা কেশ, কাঙা, কারা, কৃপান ও কাচ্চেরার ঐতিহ্যের প্রচলনের পাশাপাশি শিখধর্মের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ গুরু গ্রন্থসাহিবকে শিখদের পরবর্তী ও চিরস্থায়ী গুরু হিসেবে ঘোষণাও করেন গোবিন্দ সিংই। আজও তাঁর আদর্শ মেনে চলেন শিখরা। বহু শতাব্দী পেরিয়েও তিনি শিখ ধর্মাবলম্বীদের কাছে একই রকম শ্রদ্ধেয় এক চরিত্র হয়ে রয়ে গিয়েছেন। গুরু গোবিন্দ সিংয়ের চার পুত্রকে হত্যা করেছিল মোঘলরা। সেই দিনটিকে স্মরণে রেখেই তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য হিসেবে ২৬ ডিসেম্বর দিনটি ‘বীর বাল দিবস’ হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্র।

সাম্প্রতিক অতীতে কৃষি আইনকে কেন্দ্র করে যে বিক্ষোভ শুরু হয়েছিল, সেই আন্দোলনের পুরোভাগে ছিলেন শিখ কৃষিজীবীরা। কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের সঙ্গে শিখদের কার্যত দূরত্ব তৈরি হয়ে যায় ওই আন্দোলনকে কেন্দ্র করে। যদিও ইতিমধ্যেই কৃষি আইন প্রত্যাহার করে নিয়েছে মোদি সরকার। এই পরিস্থিতিতে এবার শিখ ধর্মগুরুর জন্মজয়ন্তীতে বড় ঘোষণা করতে দেখা গেল প্রধানমন্ত্রীকে।

[আরও পড়ুন: ভারতীয় জলসীমান্তে অনুপ্রবেশ পাকিস্তানি নৌকার, গুজরাটে আটক ১০ নাবিক-সহ জলযান]

Advertisement
Next