Presidential Election: রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের আগেই বিরোধী শিবিরে ভাঙন! দ্রৌপদী মুর্মুকে সমর্থনের পথে কংগ্রেসের জোটসঙ্গী

04:31 PM Jun 22, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আশঙ্কা ছিলই। সেটাই সম্ভবত সত্যি হতে চলেছে। রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধী শিবিরকে ধাক্কা দিয়ে বিজেপি (BJP) মনোনীত প্রার্থীকেই সমর্থন করতে পারে কংগ্রেসের জোটসঙ্গী তথা ঝাড়খণ্ডের শাসক দল জেএমএম। এমনটাই ইঙ্গিত মিলেছে দলীয় সূত্রে। তাছাড়া ওড়িশার শাসকদল বিজেডিও (BJD) যে দ্রৌপদী মুর্মুকেই সমর্থন করবে সেটাও স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। এনডিএ শিবিরের যে দলটিকে পাশে পাওয়া নিয়ে বিজেপি নেতৃত্ব সামান্য সংশয়ে ছিল, সেই নীতীশ কুমারের জেডিইউও দ্রৌপদী মুর্মুকেই সমর্থন করবে। খোদ নীতীশ কুমারই সেকথা জানিয়েছেন।

Advertisement

আসলে জেএমএমের দুই শীর্ষ নেতা শিবু সোরেন (Shibu Soren) এবং হেমন্ত সোরেনের (Hemant Soren) সঙ্গে সম্পর্ক বেশ ভাল দ্রৌপদী মুর্মুর। তিনি যখন ঝাড়খণ্ডের রাজ্যপাল ছিলেন, তখনও সোরেনে পরিবারের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রেখেছিলেন। সেই সুসম্পর্কের সুবাদেই জেএমএমের (JMM) সমর্থন পেয়ে যেতে পারেন এনডিএর রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী। তাছাড়া জেএমএম ঘোষিতভাবে আদিবাসীদের দল হিসাবে পরিচিত। তাঁরা রাষ্ট্রপতির মতো সাংবিধানিক পদে একজন আদিবাসী প্রার্থীর বিরোধিতা করতে চাইছেন না।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: মহারাষ্ট্রে মহানাটকের মাঝেই করোনা আক্রান্ত মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে]

তাছাড়া বিজেডি দ্রৌপদীকেই (Draupadi Murmu) সমর্থন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেক্ষেত্রে বিরোধী শিবিরের প্রার্থী যশবন্ত সিনহার জয়ের সম্ভাবনাও তেমন দেখছেন না জেএমএম নেতারা। জেএমএম সূত্রের খবর, আপাতত পুরো বিষয়টি ভাবনা চিন্তার স্তরে আছে। দলের এক শীর্ষ নেতা জানিয়েছেন, “আমরা ইতিহাসের ভুল দিকে থাকতে চাই না। আদিবাসীদের শুভাকাঙ্ক্ষী হিসাবে যে পরিচিতি তৈরি হয়েছে, সেটা খোয়াতে চাইছে না দলের শীর্ষ নেতৃত্ব।”

[আরও পড়ুন: কলেজে পরিদর্শনে এসে অধ্যক্ষকে সপাটে চড় কষালেন বিধায়ক, ভাইরাল ভিডিও ঘিরে তুঙ্গে বিতর্ক]

অথচ, এই জেএমএম যশবন্তের নাম প্রার্থীপদে প্রস্তাবকদের মধ্যে অন্যতম ছিল। যশবন্ত সিনহাও (Yashwant Sinha) ঝাড়খণ্ডের নেতা। সেই হিসাবে তাঁরা যশবন্তের পাশে থাকবেন এমনটাই প্রত্যাশা করছিলেন বিরোধী শিবিরের নেতারা। কিন্তু দ্রৌপদীকে প্রার্থী করে বিরোধীদের অঙ্ক কিছুটা হলেও বিগড়ে দিল বিজেপি। জেএমএম শেষ পর্যন্ত দ্রৌপদীকে সমর্থন করলে শুধু যে বিজেপি প্রার্থীর জয়ের পথ প্রশস্ত হবে, সেটাই নয়। সেই সঙ্গে তথাকথিত বিরোধী জোট গঠনের প্রক্রিয়াও ধাক্কা খাবে। আসলে গেরুয়া শিবির ওড়িশার এই আদিবাসী নেত্রীকে প্রার্থী করার আগেই অঙ্ক কষে নিয়েছিল। দ্রৌপদীকে প্রার্থী করা হলে জেএমএমের যে সমর্থন না করে উপায় থাকবে না, সেটা একপ্রকার ধরেই নিয়েছিল গেরুয়া শিবির। সেই অঙ্কেই এবার বাজিমাত করার পথে বিজেপি।

Advertisement
Next