রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধী জোটের রাশ মমতার হাতেই! সোনিয়া-সহ ২২ নেতানেত্রীকে দিলেন চিঠি

05:37 PM Jun 11, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাষ্ট্রপতি নির্বাচনকে সামনে রেখে আগামী ১৫ জুন দিল্লিতে একত্রিত হচ্ছে বিরোধীরা। ওই বৈঠকে বিরোধী ঐক্যের সুদৃঢ় ছবি তুলে ধরতে ফের উদ্যোগী হলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। সোনিয়া গান্ধী-সহ দেশের বিজেপি বিরোধী ২২ নেতাকে ওই বৈঠকে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে চিঠি দিলেন তৃণমূল নেত্রী।

Advertisement

বিজেপি বিরোধিতায় কংগ্রেসের আন্তরিকতা নিয়ে বারবার প্রশ্ন তুলেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। ২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে সোনিয়া (Sonia Gandhi) রাষ্ট্রপতি ভোটকে সামনে রেখে বিরোধী নেতৃত্বের রাশ নিজের হাতে নিতে উদ্যোগী হলেও বিজেপি বিরোধী দলগুলিকে এক ছাতার তলায় আনতে মমতা বন্দ্যোপাধ‌্যায়কেই বারবার উদ্যোগ নিতে হচ্ছে। এবারেও তার ব্যতিক্রম হল না। দিল্লিতে অবিজেপি নেতাদের নিয়ে বৈঠকেরও মূল উদ্যোক্তাও মমতাই।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: এসব বরদাস্ত করা হবে না, কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে, হাওড়ার হিংসা রুখতে কড়া বার্তা মমতার]

বিরোধীরা যে ঐক্যবদ্ধ সেই বার্তা দিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোনওরকম ছুৎমার্গ না রেখে বিরোধী শিবিরের কার্যত সব নেতাকেই চিঠি দিয়েছেন। চিঠি গিয়েছে অবিজেপি-অকংগ্রেসি আট রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে। আম আদমি পার্টির (AAP) দুই মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল (Arvind Kejriwal) এবং ভগবন্ত মান দু’জনেই চিঠি পেয়েছেন। কর্ণাটকের জনতা দল সেকুলারেরও দুই সদস্য এইচডি দেবেগৌড়া এবং এইচ ডি কুমারস্বামীকে চিঠি লিখেছেন তৃণমূলনেত্রী। কিন্তু কংগ্রেসের একমাত্র প্রতিনিধি হিসাবে চিঠি গিয়েছে সোনিয়ার কাছে। রাহুল গান্ধীকে (Rahul Gandhi) ওই বৈঠকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। দুই কংগ্রেস শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরাও চিঠি পাননি।

[আরও পড়ুন: জেলে রাত কাটিয়ে গালাগাল ভুললেন রোদ্দুর রায়! পুলিশকে শেখাচ্ছেন ‘মোক্সাবাদ’]

মমতার চিঠি গিয়েছে বিজেপির ‘বন্ধু’ দল বিজেডির নেতা নবীন পট্টনায়েক এবং শিরোমণি অকালি দলের সুখবীর সিং বাদলের কাছেও। সিপিএম (CPIM) এবং সিপিআইয়ের (CPI) দুই প্রতিনিধি সীতারাম ইয়েচুরি এবং ডি রাজাকেও ওই বৈঠকে থাকতে অনুরোধ জানিয়েছেন তৃণমূলনেত্রী। আমন্ত্রণ পেয়েছেন কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নও। মমতার চিঠি গিয়েছে শরদ পওয়ার, এমকে স্ট্যালিন, লালুপ্রসাদ যাদব, অখিলেশ যাদব, ফারুখ আবদুল্লাহ, মেহেবুবা মুফতির কাছেও। এখন দেখার বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়ে কতজন ওই বৈঠকে উপস্থিত থাকেন। কংগ্রেস কী অবস্থান নেয়, সেটাও লক্ষণীয় বিষয়।

Advertisement
Next