Advertisement

বিজেপির সঙ্গে আঁতাঁত অধীরের! মুর্শিদাবাদে ভোটের মুখে বিস্ফোরক জোটসঙ্গী আব্বাস

10:22 AM Apr 23, 2021 |

অতুলচন্দ্র নাগ, ডোমকল: নামে সংযুক্ত মোর্চা। কিন্তু জোটধর্ম না মেনে সরাসরি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীকেই (Abbas Siddique) নিশানা করলেন ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের প্রধান আব্বাস সিদ্দিকি। অভিযোগ করলেন, বিজেপির সঙ্গে অধীর চৌধুরীর গোপন আঁতাঁতেরও। সাফাইয়ের সুরে বোঝালেন, কেন তাঁরা মালদহ এবং মুর্শিদাবাদে কংগ্রেসের (Congress) বিরুদ্ধে বহু জায়গায় প্রার্থী দিয়েছেন। মুর্শিদাবাদের অনুন্নয়নের জন্য বিঁধলেন সেই কংগ্রেসকেই। যদিও এই সংযুক্ত মোর্চায় বামফ্রন্টের দলগুলির সঙ্গেই রয়েছে কংগ্রেস এবং আইএসএফ।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

বৃহস্পতিবার মুর্শিদাবাদের রানিনগর বিধানসভার ইসলামপুর নেতাজি পার্কে আয়োজিত জনসভায় আইএসএফ (ISF) প্রধান পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকি অবশ্য তৃণমূল এবং বিজেপিকে একই বন্ধনীতে ফেলে সমালোচনা করেন। সরাসরি জানিয়ে দেন, “মুর্শিদাবাদে কংগ্রেসের সঙ্গে আইএসএফের জোট হয়নি। আমার তো মনে হয়, বিজেপির (BJP) সঙ্গে অধীর চৌধুরীর বোঝাপড়া হয়ে গিয়েছে। তাই রানিনগর বিধানসভায় বাম-গণতান্ত্রিক-ধর্ম নিরপেক্ষ শক্তির জোটসঙ্গী আইএসএফ মনোনীত ‘খাম’ প্রতীকের প্রার্থী মাসুম রেজাকে আপনারা ভোট দিন।”

[আরও পড়ুন: করোনা পরিস্থিতিতে নিরাপত্তায় জোর, সমস্ত নির্বাচনী সভা বাতিল করলেন মমতা]

আব্বাস সিদ্দিকির অভিযোগ, “তৃণমূল দলটাই গঠিত হয়েছিল বিজেপির ইশারায়।” আবার বিজেপির সমালোচনা করে বলেন, “সাত বছর আগে বলেছিল সবকা সাথ সবকা বিকাশ। একটাও বিকাশ হয়নি। উলটে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়ছে। এই বিজেপি ক্ষমতায় এলে অসমের মতো আমাদের ডিটেনশন ক্যাম্পে পাঠাবে। তাই ওদের ভোট দেবেন না।” ওই মঞ্চ থেকে আব্বাস সিদ্দিকি বলেন, “আমরা অধিকার ছিনিয়ে নেব। জোটে এই মুর্শিদাবাদে তিনটি ও মালদহে দু’টি মোট ছ’টি আসন চেয়েছিলাম। কিন্তু অধীর চৌধুরী (Adhir Chowdhury) তা মানেননি। সবাই চাইল জোট হবে। কিন্তু অধীর চৌধুরি মানলেন না। তাই এই আমরা জায়গাগুলোয় প্রার্থী দিয়েছি।”

Advertising
Advertising

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

[আরও পড়ুন: ‘অনুপ্রবেশকারীরাই আপনার ভোটব্যাংক’, মমতাকে তীব্র আক্রমণ অমিত শাহের]

ওই মঞ্চ থেকে ডোমকলের জোট প্রার্থী সিপিএমের মোস্তাফিজুর রহমানের পক্ষেও ভোট চান তিনি। আর রানিনগরে আইএসএফ প্রার্থীকে ভোট দেওয়ার জন্য সিপিএম (CPIM) এবং কংগ্রেসের ভোটারদের আহ্বান জানান। কংগ্রেসের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ করেন তিনি। আব্বাস সিদ্দিকি বলেন, “কংগ্রেস এতদিন রাজত্ব করল, কিন্তু মুর্শিদাবাদ জেলায় একটাও বিশ্ববিদ্যালয় করেনি। তাই ওদের আর সুযোগ দেওয়ার দরকার নেই। রানিনগর থেকে এবার খাম চিহ্নে ভোট দিয়ে মাসুম রেজাকে জেতান।” যদিও সিপিএম নেতৃত্ব সোশ্যাাল মিডিয়ায় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বার বার জানিয়ে দিচ্ছে, রানিনগর বিধানসভায় কংগ্রেসের ফিরোজা বেগমই হচ্ছেন তাঁদের জোট সঙ্গী ও সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থী।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next