‘কেউ কেউ আমাকে গণতন্ত্র নিয়ে জ্ঞান দিতে আসে, অথচ…’, রাহুলকে কড়া জবাব প্রধানমন্ত্রীর

02:27 PM Dec 26, 2020 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিতর্কিত কৃষি আইনকে (Farm Laws) কেন্দ্র করে ফের সরগরম জাতীয় রাজনীতি। ‘গণতন্ত্র’ মন্তব্যের জন্য এবার কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীর (Rahul Gandhi) উপর খড়গহস্ত হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। দাবি করলেন, যারা তাঁকে গণতন্ত্রের শিক্ষা দিতে আসে, তারাই নিজেদের দখলে থাকা রাজ্যে সুপ্রিম কোর্টের (Supreme Court) নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও পুরভোটের আয়োজন করে না। ওদের ছল এবং কপটতা দেখলে অবাক হতে হয়।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

গণতন্ত্র নিয়ে নতুন এই বিতর্কের সুত্রপাত গত বৃহস্পতিবার। কৃষি আইনের বিরোধিতা করে রাষ্ট্রপতির কাছে দু’কোটি মানুষের স্বাক্ষর সম্বলিত একটি ডেপুটেশন জমা দিতে যাচ্ছিল কংগ্রেসের প্রতিনিধিদল। দিল্লির বিজয়চক থেকে কংগ্রেসের (Congress) সব সাংসদ এবং কয়েকজন শীর্ষ নেতা মিছিল করে রাষ্ট্রপতি ভবনের দিকে যাচ্ছিলেন। কিন্তু দিল্লি পুলিশ তাঁদের রাষ্ট্রপতি ভবনে যাওয়ার অনুমতি দেয়নি। কংগ্রেস প্রতিনিধিরা পুলিশের বারণ না শুনলে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী-সহ বেশ কয়েকজন কংগ্রেস সাংসদকে গ্রেপ্তার করা হয়। এই ঘটনার প্রতিবাদেই মোদি সরকারের বিরুদ্ধে একের পর এক বিস্ফোরক অভিযোগ আনেন রাহুল গান্ধী। বলে দেন, “দেশে গণতন্ত্র নেই। যাঁরা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (Narendra Modi) বিরুদ্ধে কথা বলবেন, তাঁরাই সন্ত্রাসবাদীর তকমা পাবেন। আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবতও যদি মোদির বিরোধিতা করেন, তবে তাঁকেও জঙ্গি বলা হবে।”

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

[আরও পড়ুন: ‘কৃষক নিধি’র পর হাতিয়ার ‘আয়ুষ্মান ভারত’, কাশ্মীরের অনুষ্ঠান মঞ্চেও বাংলাকে খোঁচা মোদির]

এই মন্তব্য নিয়ে বিজেপির বহু নেতা রাহুলকে কটাক্ষ করলেও এতদিন নীরব ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। বস্তুত ইদানিং কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতিকে ততটা গুরুত্ব দিতে চাইছেনও না মোদি। করোনা কাল বা তাঁর সামান্য আগে থেকেই রাহুল একাধিক ইস্যুতে সরকারকে কোণঠাসা করার চেষ্টা করেছেন, কিন্তু মোদি কোনও কথারই সেভাবে জবাব দেননি। তবে, এই গণতন্ত্র মন্তব্যে আর নীরব রইলেন তা তিনি। শুধু জবাবই দিলেন না, পালটা কংগ্রেসকে আয়না দেখানোরও চেষ্টা করলেন মোদি। তিনি বললেন,”কিছু রাজনৈতিক শক্তি আমাকে গণতন্ত্র নিয়ে জ্ঞান দিতে আসে। ওঁদের ছল আর কপটতা দেখেছেন। ওই দলটাই সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ সত্ত্বেও পুদুচেরিতে পুরসভা নির্বাচনের আয়োজন করেনি। সেখানে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হওয়ার মাত্র এক বছরের মধ্যে আমরা কাশ্মীরে নির্বাচন করিয়েছি। আমি কাশ্মীরবাসীকে শুভেচ্ছা জানাব, সদ্য শেষ হওয়া নির্বাচনে গণতন্ত্রকে মজবুত করার জন্য।”

Advertising
Advertising

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next